মর্গে রাখা মৃত নারীদের ৩ বছর ধরে ধর্ষণ করতো মুন্না!


ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা মৃত নারীদের ধর্ষণের অভিযোগে মুন্না ভগত (২০) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) রাতে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) তাকে গ্রেপ্তার করে।

মুন্না ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে তার মামা ডোম জতন কুমার লালের সহযোগী হিসেবে কাজ করতো। সিআইডি পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

সিআইডি সূত্রে জানায়, গ্রেপ্তার মুন্না সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে ডোম জতন কুমার লালের সহযোগী হিসেবে কাজ করে। দুই-তিন বছর ধরে সে মর্গে থাকা মৃত নারীদের ধর্ষণ করে আসছিল।

সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত ডিআইজি শেখ মো. রেজাউল হায়দার বলেন, জঘন্যতম ও খুবই বিব্রতকর অভিযোগ। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতার পরই ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন স্থান থেকে যেসব লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নেয়া হতো, সেসব লাশের মধ্য থেকে মৃত নারীদের ধর্ষণ করতো মুন্না।

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে দায়িত্বরত ডোম ও মুন্নার মামা জতন কুমার লাল বলেন, মুন্না গত দুই-তিন বছর ধরে তার সহযোগী হিসেবে মর্গে কাজ করতো। তার বাবার নাম দুলাল ভগত। গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজারে। সে আরও দুই-তিন জনের সঙ্গে মর্গের পাশে একটি কক্ষেই রাতে থাকত।

মুন্নার বিরুদ্ধে মৃত নারীদের ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে জতন লাল কুমার বলেন, মুন্না মাঝে মধ্যে গাঁজা বা নেশাটেশা করতো। কিন্তু এ রকম একটি কাজ সে করতে পারে, তা ভাবতেই পারছি না।


আজব খবর

পরবর্তী পোস্ট

অনলাইনে কিনলেন মোবাইল, প্যাকেট খুলেই পেলেন কাঠের টুকরা!

মঙ্গল নভে ২৪ , ২০২০
ফেসবুকে দেওয়া হয়েছিল কম দামি মোবাইল ফোন বিক্রির চটকদার বিজ্ঞাপন। আর তা দেখেই অর্ডার করেন এক ব্যক্তি। অর্ডার করা মোবাইল বাসায় পৌছলে বাক্সটি খুলতেই দেখেন ফোন তো নয়ই বাক্সভর্তি কাঠের টুকরা! এরপর ওই ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঢাকার রূপনগর থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে আবুল কালাম (৪১) নামে এক প্রতারককে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব-৪। মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে জানান র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সাজেদুল ইসলাম সজল। তিনি জানান, আটক আবুল কালাম ভিন্ন নামে ফেসবুকে একটি ফেক আইডি চালাতেন। […]