যানজটে বিরক্ত, রেহাই পেতে কুমিরে ভরা নদীতে ঝাঁপ


যানজটে আটকাপড়ার অভিজ্ঞতা কমবেশি সবারই আছে। এই অবস্থা যে কতটা বিরক্তিকর, সেটা ভুক্তভোগী মাত্রই জানেন।

যানজটে বসে থাকতে কারোই ভালো লাগার কথা নয়। কিন্তু এই পরিস্থিতির মুখোমুখি হলে ভালো না লাগলেও বসে থাকা ছাড়া তো আর উপায় নেই। চাইলেই গাড়ি নিয়ে উড়ে চলে যাওয়া যায় না, কিংবা গাড়ি রেখে হাঁটাও শুরু করা যায় না।

যানজটে আটকাপড়ে বিরক্ত হলেও বসেই থাকতে বাধ্য হন গাড়ির চালক আর যাত্রীরা। তবে যানজটে বিরক্ত হয়ে কেউ কুমিরে ভরা নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে, এমনটি শুনেছেন কখনো? এমন নজির বোধহয় খুব একটা নেই।

বাস্তবে ঘটেছে এমনটি। ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে এ রকম একটি ঘটনার কথা জানা গেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানার বাসিন্দা জিমি ইভান জেনিংস নামের ২৬ বছর বয়সী এক যুবক দুই ঘণ্টা ধরে সড়ক দুর্ঘটনার কারণে সৃষ্ট হওয়া যানজটে আটকে ছিলেন।

এই যানজটে বসে থাকতে থাকতে তিনি চরম বিরক্ত হয়ে যান। শেষমেশ উপায়ন্তর না পেয়ে পাশের একটি নদীতে সাঁতার কাটার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ভাবেন কিছুক্ষণ সাঁতার কেটে আবার গাড়িতে ফিরে আসবেন।

কিন্তু নদীতে ঝাঁপ দেয়ার পরই বাঁধে বিপত্তি। সেখানে যে কুমির আছে তা জানতেন না ওই যুবক। তবে কপাল ভালো যে কুমির তাকে আক্রমণ না করলেও ঝাঁপ দেয়ার সাথে সাথে তলিয়ে যেতে থাকেন তিনি। একপর্যায়ে কোনোক্রমে ভেসে উঠে সাঁতার কেটে তীরে আসার চেষ্টা করেন।

পরে নিজের ফেসবুকে ওই অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে পোস্ট করেন জিমি। সেখানে তিনি লেখেন, আমার জীবনের সেরা সময় কাটাচ্ছিলাম। সব কিছু আমার মনের মতোই চলছিল। আমি অনেককে আগেও নদীতে ঝাঁপ দিতে দেখেছি। তবে ঝাঁপ দেয়ার পর মনে পড়েছিল এসব কেবল সিনেমাতেই দেখা যায়।

তিনি আরও লেখেন, ঝাঁপ দিয়ে পানিতে পড়ামাত্র আমার মুখে পানি ঢুকে যায়। আমি বাম হাতে ব্যথা পাই। সাঁতার কেটে তীরে আসার চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু স্রোত অনেক তীব্র ছিল। দেড়ঘণ্টা পর আমি ক্লান্ত হয়ে যাই। আমার বাম হাত আসাড় হয়ে যায়।

‘ডান হাত আর পা দিয়ে ভেসে ছিলাম। পুরোটা সময় জুড়েই প্রার্থনা করছিলাম। তবে শেষমেষ কোনরকমে তীরে এসে পৌঁছাতে সক্ষম হই,’ বলেন তিনি।

তবে এভাবে নিজের জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলার অপরাধে হাতে হাতকড়া উঠেছে তার। পুলিশ গ্রেফতার করেছে জিমিকে।

এদিকে, এভাবে সাঁতার কাটার শখ একেবারেই ঘুঁচে গেছে জিমির। আর জীবনেরও সাঁতার কাটবেন না বলে ফেসবুক পোস্টে সে কথাও জানিয়েছেন।


আজব খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

পরবর্তী পোস্ট

Guinness World Record: প্রেমের ক্ষেত্রে উচ্চতা কোনো বাঁধা নয়, গিনেস বুকে রেকর্ড দম্পতির

শনি জুলা ১৭ , ২০২১
মানুষ স্বভাবতই প্রেম বা বিয়ে করতে গেলে তার থেকে একটু উচ্চতাসম্পন্ন পাত্র বা পাত্রী খুঁজে থাকেন বা অগ্রাধিকারে রাখেন। কিন্তু কখনো কখনো এর ব্যতিক্রমও ঘটে থাকে। প্রেমের ক্ষেত্রে যে উচ্চতা কোনো বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না, সেটাই প্রমাণ করে দেখিয়েছেন এক দম্পতি। সমাজে নারীরা পুরুষের চেয়ে একটু লম্বা হলেই শুনতে হয় নানা কানকথা বা কটূকথা। নারীদের চেয়ে নাকি পুরুষদের ই লম্বা হতে হয়। তাহলেই না-কি সেই দম্পতিকে দেখতে সুন্দর দেখায় এবং তারা পারফেক্ট হিসেবে বিবেচিত হন। ব্যতিক্রম কাজটি করে দেখালেন […]